টিভি ব্রেকিংঃ
ঝিনুক টিভির পক্ষথেকে সকল দর্শকদের জানাচ্ছি আন্তরিক শুভেচ্ছা। ঝিনুক টিভি আসছে নতুন নতুন সব আয়োজন নিয়ে। পাশেই থাকুন
বড় ভাই এর হাত ভেঙ্গে দিল ছোট ভাই

বড় ভাই এর হাত ভেঙ্গে দিল ছোট ভাই

বগুড়ার শেরপুর উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের দামুয়া পশ্চিম পাড়া গ্রামে মোঃ আফজাল হোসেন কে মারধর করে তারই নিজের ভাই , জানাযায় গত ২০ এপ্রিল (মঙ্গলবার) দুপুর ১২.৩০ টার সময় আফজাল হোসেন চন্ডিজান বাজারে আসলে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে আব্দুল খালেক ( বাবলু) (৫০),পিতা-মৃত শমসের আলী। মোহ আজিদ হোসেন (২২), পিতা-মোঃ আরজুল্যা হোসেন, মোঃ আরজুল্যা হোসেন (৪২), পিতা-মৃত শমসের আলী, মোঃ আতিকুল রহমান (১৬), পিতা- মোঃ আরজুল্যা হোসেন, মোছাঃ মৌসুমি বিবি (৪০) স্বামী আব্দুল খালেক (বাবলু) সহ প্রায় ৬-৭ জন এর দল দেশীয় অস্ত্র, লোহার রড ও লাঠি নিয়ে অতর্কিত ভাবে হামলা করে। এই বিষয়ে সামিম বাদী হয়ে শেরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায় আফজাল হোসেন কে বিবাদী আব্দুল খালেক (বাবলু) ঘেরাও করে বলে যে, তোর পুত্রের সাথে আামার মেয়ের ৩ বছর পূর্বে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় তোদেরকে সোনা দানা ও সাবমারসিবল পাইপ দিয়েছি। এখন আমার মেয়ে তোর ছেলের সংসার করে না আমাদের সোনাদানা আর সাবমারসিবল পাইপ ফেরৎ দে। তখন আফজাল হোসেন বলে তোর মেয়ে আামার ছেলে কে রেখে অন্য ছেলের সঙ্গে পালিয়ে গিয়াছে। এই কথা বলার সঙ্গে সঙ্গে বিবাদী আব্দুল খালেক (বাবলু) হুংকার দিয়ে বলে তুই বেশি বাড়াবাড়ি করিস আজ তোকে জানে মেরে ফেলবো বলার সঙ্গে সঙ্গে তার সহযোগী আব্দুল আজিদের হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে আফজাল কে হত্যার উদ্দেশ্যে করে এলোপাতাড়ি ভাবে আঘাত করতে থাকে।

একপর্যায় আফজালের বাম হাত ভেঙ্গে যায়, তখন তার আত্মচিৎকারে তার ছেলে শামীম হোসেন ছুটে এলে তাকেও মারপিট করতে থাকে। এলাকাবাসী তাদের বাবা ছেলের আত্মচিৎকারে এগিয়ে এসে আফজাল হোসেন ও তার ছেলে সামিম হোসেনকে উদ্ধার করে প্রথমে শেরপুর উপজেলার সাস্থ্য কমপ্লেক্সে, পরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

শেয়ার করুনঃ

Comments are closed.

© All rights reserved © 2020 | jhenuktv.com
Developed BY POS Digital