টিভি ব্রেকিংঃ
ঝিনুক টিভির পক্ষথেকে সকল দর্শকদের জানাচ্ছি আন্তরিক শুভেচ্ছা। ঝিনুক টিভি আসছে নতুন নতুন সব আয়োজন নিয়ে। পাশেই থাকুন
এসআই প্রত্যাহারে চিকিৎসকদের আল্টিমেটাম

এসআই প্রত্যাহারে চিকিৎসকদের আল্টিমেটাম

বরিশাল বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ) সভাপতি ডা. ইশতিয়াক হোসেনের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা এবং তার সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের অভিযোগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই রিয়াজুলকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে প্রত্যাহারের আল্টিমেটাম দেয়া হয়েছে। বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে দাবি না মানা হলে কঠোর কর্মসূচী ঘোষণার হুমকি দেয়া হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে শের ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের হল রুমে জেলা বিএমএ’র জরুরি সভা শেষে এই আল্টিমেটাম ঘোষণা করা হয়।

জেলা বিএমএ সভাপতি সাবেক সিভিল সার্জন ডা. ইশতিয়াক হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সহসভাপতি ডা. সৈয়দ মাকসুমুল হক এবং সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. মনিরুজ্জামান শাহিনসহ অন্যান্যরা অংশগ্রহণ করেন।

বিএমএ’র সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. মনিরুজ্জামান শাহিন জানান, গত ২১ ডিসেম্বর জেলা বিএমএ সভাপতি এবং ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. ইশতিয়াক হোসেনসহ ২ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়া রোগী মানিক কারিগর। মূলত ডা. ইশতিয়াক ওই রোগীর চিকিৎসা করেননি। তারপরও ওই হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে তার বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হয়।

ওই মামলার তদন্তে গিয়ে কোতোয়ালী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক রিয়াজুল ডা. ইশতিয়াকের সাথে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেন। বিষয়টিতে চিকিৎসকরা ক্ষুব্ধ হন। তাই ওই এসআইকে কোতোয়ালী মডেল থানা থেকে প্রত্যাহার ও তার বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে বিএমএ দাবি জানিয়েছিলো। কিন্তু গত কয়েক দিনেও ওই দাবি পূরণ হয়নি। এ কারণে বিএমএ জরুরি বৈঠক করে দায়েরকৃত মামলা এবং অভিযুক্ত উপ-পরিদর্শক রিয়াজুলকে প্রত্যাহারের দাবিতে বিএমএ’র সভায় ৪৮ ঘণ্টা আল্টিমেটাম দেয়া হয়।

ওই সময়ের মধ্যে রিয়াজুলকে কোতোয়ালী মডেল থানা থেকে প্রত্যাহার করা না হলে মানববন্ধন, প্রাইভেট চেম্বার বন্ধ রাখা এবং পর্যায়ক্রমে আরো কঠোর কর্মসূচী হাতে নেয়া হবে বলে জানান ডা. শাহিন।

বিএমএ’র বরিশালের সহ-সভাপতি ডা. সৈয়দ মাকসুমুল হক বলেন, পৃথিবীব্যাপী করোনাকালীন দুর্যোগে বাংলাদেশের চিকিৎসকগণ যেখানে নিবেদিত প্রাণ ও সফলতার সাথে চিকিৎসা সেবা অব্যাহত রেখেছেন। সেখানে এমন ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ ও ক্ষমতার অপব্যবহার বরিশাল বিভাগের চিকিৎসকদের কর্মস্পৃহা ও স্বাস্থ্য সেবা স্থবির করে দেবে।

এ ব্যাপারে কোতোয়ালী মডেল থানার এসআই মো. রিয়াজুল বলেন, আমি মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসেবে তার সাথে কথা বলেছি মাত্র। সেখানে এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি যার জন্য তারা আন্দোলনের ডাক দিবেন। আমি তাকে চিনি না, সেও আমাকে চেনে না। এখানে কি হয়েছে তা আমারও বোধগম্য নয়।

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2020 | jhenuktv.com
Developed BY POS Digital